The Underground, ep. 6: “গায়ের রং টা একটু ময়লা!”

Our guest writer today, Saraf Rahman. Dhaka, Bangladesh. October 2020.

“মেয়েটার চেহারার কাট কি সুন্দর খালি রং টা একটু ময়লা/চাপা! এই শোনো, প্রত্যেকদিন কাঁচা হলুদ মাখবা আর দুধ খাবা, দেখবা রং পরিষ্কার হয়ে যাবে!” “তোমার বাবা কি খাওয়ায় না? এত শুকনা মেয়ে কি ভালো লাগে?”
ছোটবেলা থেকে এই কথাগুলো আমার কিছু হোক বা না হোক, প্রতিদিন শুনতে হতো। কখনো বাইরের মানুষ বলতো, কখনো পরিবারের কাছের লোকজন বলতো। তখন ঠিক বুঝতে পারতাম না আমার গায়ের রং এ এমন কি ছিল যে এই ঢাকাই আন্টীরা আমার গায়ের রঙের সাথে ময়লার তুলনা করছে?

Image Rights: https://www.instagram.com/saraf.rahman/

স্বাভাবিক সেই সময় সমাজের অভ্যন্তরীণ কলোনিয়াল রেসিসম আর বডি শেমিং কি তা জানা ছিল না। আমার ২টা খালাতো বোন আছে। দুইজনই মারদাঙ্গা সুন্দর দেখতে! বোনদের ভেতর ভয়ানক দহরম মহরম আর ভালোবাসাবাসি। কিন্তু, যখনি আমরা কোনো ফ্যামিলি দাওয়াতে যেতাম কিছু কথা শুনতে হতো। একটা বাচ্চা মেয়ের এই ধরনের কথা শোনা কোনো দুনিয়াতেই জায়েজ না। এই একজন ধাম করে এসে বললো, ‘ কি মিষ্টি মেয়ে তিনটা! সব গুলো কি পুতুলের মতন। শানু ভাবি/আপা, (আমার দিকে পয়েন্ট করে) এটা নিশ্চই আপনার মেয়ে, গায়ের রং তো মায়ের মতন পেয়েছে, বুট কাটিং বাপের মতন। বাবার রং পেলে কি যে সুন্দর লাগতো ওকে! ব্যাপার না, বড় হলে গায়ের রং পরিষ্কার হয়ে যাবে!

আমার মা, হয়তোবা বুঝতো না যে, সে একজন কে না বুঝে তার এবং তার মেয়েকে এরকম রেসিস্ট কমেন্ট করতে দিচ্ছে। আম্মুরা বুঝতো না কারণ তারা হয়তোবা এটাই স্বাভাবিক মনে করতো, হয়তোবা সেও ছোটবেলার থেকে এমন কিছু শুনে এসেছে যে যার কাছে এটা নরমাল কমেন্ট মনে হয়েছে। এভাবেই কথা গুলো শুনতে শুনতে ছোট থেকে কৈশোর বয়সে এসে দাঁড়ালাম। তখন অপোজ করিনি কারণ বাবা একটা জিনিষ বলতো, বড়দের সাথে মুখে মুখে কথা বলে না, বেয়াদব বলবে সবাই তোমাকে।

সবার কথা শুনতে হয় ভালো মেয়েদের! আজ অব্দি ভালো/খারাপ মেয়ের সংজ্ঞাটা ঠিকমত বুঝতে পারলাম না।

Image Rights: https://www.instagram.com/saraf.rahman/

শুরু হলো সাজুগুজুর দিন! নিজেকে ফর্সা দেখানোর জন্য যা যা মুখে মেখেছি তার একটা লিস্ট করলে গোটা দশেকদিন পর হয়ে যাবে। কাঁচা হলুদ, চন্দন, বিভিন্ন বিদেশি মেকাপ কিছুই বাদ ছিল না! যুবতী আমি, এমন একটা বয়স যে নিজে যা ভাবতাম সেটাই ঠিক! আর আমাকে কেউ কোনো কিছুতে মানাও করতো না। তাদের কাছেও হয়তোবা মনে হয়েছে এই সুযোগে যদি রংটা পরিষ্কার হয়!

I was never in love with my skin tone back in teenage life. I wanted to look pretty, and by pretty I mean, I wanted to look ফর্সা!

টিনএজ লাইফে এসে স্কিন শেমিং-এর সাথে শুরু হলো আরও একটা জিনিষ ‘বডি শেমিং’। গায়ের রং কালো তার ওপর শুকনা পাতলা একটা মেয়ে! কত ডাক নাম যে শুনতে হয়েছে! টুথপিক, কাঠি, গায়ে কিছুই নাই, বগের ঠেং!

ভাবলেই অবাক লাগে যে কত অজানা মানুষ এক দিনের দেখায় কত কিছু বলে যেত। আত্মীয় স্বজনরা পিছিয়ে ছিল না. আমরা কিভাবে অন্যদের চেহারার বা শরীর নিয়ে মন্তব্য করি? এত বড় অধিকার দিয়েছে কে? কিভাবে একটা বাচ্চার সামনে তার রূপ রং নিয়ে বাঁধ বিচার করি? তার ওপর এটা কেমন প্রভাব পড়বে একবার ভেবে দেখি না কেন?

Image Rights: https://www.instagram.com/saraf.rahman/


To everyone who atleast once commented on my skin color & body- You guys were monster to a little kid, you said the meanest thing anyone could ever possibly say to another human being! You broke someone’s confidence, you made them feel ugly, you imposed your dirty mentality onto their life. Stop.

Today, somewhere out there, some kid is still facing this tyranny. The pressure to fit in that box that you so called people call “pretty”. We will not let you. Me, Us and our kind- an entire generation. This our second coming, and we will change this status quo. We shall not let them suffer all these stigmas and ‘culture’ you people made us go through. They won’t have to worry about how society think and will have the freedom to discover how they should think.

A world with better people in it. A place they don’t want to runaway from. We will not go gentle into that good night. We will rage, rage against the dying of the light.

About Guest

Saraf Rahman

Saraf.Rahman
Kolkata, India

Content Rights: Notes From The Underground/The Underground Collective

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s