সিঁদুরে ক্ষুধার্ত মেঘ

ফরাসী রাণী ম্যারী অ্যান্টোয়ানেতকে নিয়ে দুষ্টু লোকের ছড়ানো একটি মুখরোচক গল্প আছে।
গল্পটা এমন যে, ১৭৮৯ সাল- ফ্র্যান্সে তখন ভয়ানক অবস্থা। গরীব চাষীরা না খেয়ে মারা যাচ্ছে। অথচ, ধনীদের ঘরে প্রতিনিয়ত শিল্পকলা-সংস্কৃতি, হাসি-আনন্দ ও খানাপিনার জলসা বসছে।

এর মধ্যে একদিন এক চাকরানী রাণী ম্যারীকে গিয়ে বললো “রাণীমা, আপনার দেশে গরীব মানুষ খাওয়ার জন্যে রুটি খুজে পাচ্ছে না।”
শুনে রাণী ম্যারী বললেন, “তো কি হয়েছে? গরীবদের বলো রুটি না পেলে কেক খেতে।”

তো যা বলছিলাম, এটা নেহাতই দুষ্টলোকের ছড়ানো মুখরোচক গল্প। আসেন আরেকটা গল্প বলি। সার্জারির পর গত কদিন হাসপাতালে কাইত হয়ে ছিলাম| কাইত অবস্হায় মানুষের স্ট্যাটাস দেখছিলাম।

একজন লিখেছেন, “ফেইসবুকে খাবারের ছবি দিবেন না, অনেক মানুষ না খায়া আছে, ফেইসবুকে কাপড় পড়া ছবি দিবেন না অনেকেরই কাপড় নাই,ফেইসবুকে ব্লা ব্লা ব্লা!!” ফেইসবুক ওয়াল একজন মানুষের প্রাইভেট স্পেস, এইখানে সে কি দিবে না দিবে এইটা ঠিক কইরা দেয়ার আপ্নারা কে মশাই? জগতে চিরকাল কোন না কোন কিছুর অভাব ছিল আছে থাকবে মহামারী থাক বা না থাক! একজন মানুষ তার মতামত, ঘটনা, সখ, ইচ্ছা প্রকাশ করার পুর্ন অধিকার রাখে, আপ্নি তাতে বাধা দিতে পারেন না!”

সহীহ ভালো কথা বলেছেন জ্যেষ্ঠ ভ্রাতা।

আরেকজন কে দেখিলাম ইংরেজীতে লিখেছেন, “Let people watch money heist, let people make their coffees, let people cut their hair, let people create art, let people post their cooking or workout videos, let people post religious quotes or ayaats of Quran, let people be! You do you.”

মানছি, সারাদিন গরীব মানুষের কথা মনে করায়ে দিয়ে “ভাইবটা” নষ্ট করার কোন মানে হয় না। আমরা সবাই ম্যালদ্বিপ ট্রিপে যেতে চাই, আর গিল্ট ট্রিপে না প্লিজ। দুঃখিত, আমি ভীত মানুষ। ঘরপোড়া গরু, সিঁদুরে ক্ষুধার্ত মেঘ দেখলেই ভয় পাই|

ফরাসী রেভ্যুলুশনের শেষে কি হয়েছিলো মনে আছে? রাণী ও তার জলসার অতিথীবর্গের কাল-চারাল স্কন্ধকাটা ভুত নাকি আজও বাস্টিলের অন্ধকার কোনায় গিয়্যেটিনের ভয়ে কেঁদে বেড়ায়।

গতকালকে শুনলাম মগবাজার মীনা বাজার থেকে কেনাকাটা করে বের হওয়া খদ্দেরের চাল-বাজার ছিনিয়ে নিয়ে গিয়েছে কিছু ক্ষুধার্ত মানুষ। প্রার্থনা করেন, যেন বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন সবাইকে খাইয়ে-দাইয়ে ঠিক রাখতে পারে, নইলে দরজা ভেঙ্গে “কেক” খুজতে আশা লোকদের বইলেন, “ডোন্ট রাশ, ডোন্ট রাশ”।

Sketch. Woman. Crows. Search for food. By a dumpster.

“Famine sketches” by Zainul Abedin, depicting the Bengal Famine of 1943-44 caused by Winston Churchill’s policies

যাই হোক, আমার মত দুষ্টলোকের মুখরোচক গল্পকে আমলে নেবেন না। কোথাও ভুল হয়ে থাকলে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে না দেখলেও চলবে…

Photo courtesy- BDNews24.com

সিঁদুরে ক্ষুধার্ত মেঘ
Author: Saddam H Shadhin.

First Published: Apr 18, 2020
Dhaka, Bangladesh.
https://www.facebook.com/SaddamHShadhin/posts/500693227479590

Second published: Apr 20, 2020
Dhaka, Bangladesh.
https://shadhin.home.blog/2020/04/20/সিঁদুরে-ক্ষুধার্ত-মেঘ/

Third Published: Apr 20, 2020
Dhaka, Bangladesh.
https://m.facebook.com/groups/330898140288719?view=permalink&id=3204893072889197

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s